বিশ্ব দেখল, বুলেটই হাসিনার ক্ষমতার উৎস – News Desk BD
 

বিশ্ব দেখল, বুলেটই হাসিনার ক্ষমতার উৎস

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, বিশ্ব দেখল, ব্যালট নয়, বুলেটই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ক্ষমতার উৎস। শুক্রবার এক টুইটার বার্তায় সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এক টুইট বার্তায় খালেদা জিয়া বলেন, বিশ্ব দেখল, ব্যালট নয়, বুলেটই শেখ হাসিনার ক্ষমতার উৎস। ৫ জানুয়ারির ‘ভোটারবিহীন কলঙ্কিত নির্বাচন’ বাংলাদেশিদের ভোটাধিকারের ঐতিহাসিক সংগ্রামের প্রতি করুণ পরিহাস ও আমাদের গণতান্ত্রিক অভিযাত্রার পিঠে ছুরিকাঘাত। জনগণই তাদের সরকার গড়বে, চক্রান্তকারীরা না। গণতন্ত্রের প্রশ্নে আপস নয়।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেয়নি। ওই নির্বাচনের পরই ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ সরকার। এর পরের বছর থেকে ক্ষমতাসীন দল দিনটিকে গণতন্ত্র দিবস হিসেবে পালন করে। আর সংসদের বাইরে থাকা বড় দল বিএনপি এ দিনটিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে পালন করে থাকে।

ফাঁকা গুলি ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা বিএনপির বের করা কালো পতাকা মিছিল পুলিশ ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে। বিএনপির দাবি, এ ঘটনায় বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের কমপক্ষে ২৫ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রদল ও যুবদলের ছয় নেতা-কর্মীকে আটক করেছে। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির সাধারণ নির্বাচনের তৃতীয় বর্ষপূর্তিতে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালন উপলক্ষে আজ শুক্রবার ওই মিছিল বের করে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা বিএনপি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বেলা সাড়ে তিনটার দিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা বিএনপির সভাপতি নিপুণ রায় চৌধুরীর নেতৃত্বে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের শতাধিক নেতা-কর্মী কালো পতাকা মিছিল বের করেন। মিছিলটি মনু ব্যাপারীর ঢাল থেকে আমিরাবাগ এলাকায় যাচ্ছিল। এ সময় পুলিশ মিছিলকারীদের বাধা দিলে উভয় পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য লাঠিপেটা ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে। একপর্যায়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েকটি ফাঁকা গুলি ছুড়ে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের কমপক্ষে ২৫ জন নেতা-কর্মী আহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রদল ও যুবদলের ছয় নেতা-কর্মীকে আটক করেছে।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা বিএনপির সভাপতি নিপুণ রায় চৌধুরী বলেন, ৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ উপলক্ষে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের কয়েক শ নেতা-কর্মী কালো পতাকা নিয়ে শান্তিপূর্ণ মিছিল বের করে। ওই মিছিলে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালায়। একপর্যায়ে পুলিশ নেতা-কর্মীদের ওপর কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে এবং কয়েকটি গুলি করে। এতে বিএনপির কমপক্ষে অর্ধশত নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ছাত্রদল ও যুবদলের ছয় নেতা-কর্মীকে আটক করে নিয়ে গেছে।

নিপুণ রায় বলেন, ‘আমরা পুলিশের এ ধরনের আচরণের নিন্দা জানাই এবং আটক নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবি করছি।’

[Close]

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের প্রথম আলোকে বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা মিছিল বের করে এলাকায় ভাঙচুর ও অরাজকতা সৃষ্টি করছিলেন। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ও জনগণের জানমাল রক্ষার্থে একটি ফাঁকা গুলি ছোড়ে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ছয়জনকে আটক করেছে।

লাইক দিন ও জনস্বার্থে শেয়ার করুন

বিজ্ঞাপন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*